আরব আমিরাতে অভিবাসীরাও পাচ্ছেন বিনামূল্যের ভ্যাকসিন

আরব আমিরাতে অভিবাসীরাও পাচ্ছেন বিনামূল্যের ভ্যাকসিন

ইমিগ্রেশন নিউজ ডেস্ক :  মধ্যপ্রাচ্যের সবচেয়ে ধনী রাষ্ট্র হিসেবে পরিচিত সংযুক্ত আরব আমিরাত, বিশ্বের দৃষ্টি যে শহরকে ঘিরে থাকে সেই ’দুবাই’ এর দেশ! নাগরিকদের পাশাপাশি অভিবাসীদেরও বিনামূল্যে করোনা ভ্যাকসিনের আওতায় নিয়ে আসছে দেশটির সরকার।

করোনাভাইরাস যদিও খুব একটা আঘাত করতে পারেনি দেশটিতে। সুশৃঙ্খল ও সব ধরনের প্রস্তুতি হয়তো তাদের অনেকটা নিরাপদ রেখেছে। এরপরও দেশের সকল নাগরিককে টিকা দিতে বদ্ধপরিকর আমিরাত সরকার।
এখন পযন্ত মোট ৩টি করোনা ভ্যাকসিনের অনুমোদন দিয়েছে  দেশটি। সর্বপ্রথম অনুমোদন পায়  রাশিয়ান ‘স্পুৎনিক ভি’ ভ্যাকসিন। এরপর চীনের ‘সাইনোফার্ম’ এবং যুক্তরাষ্ট্রের ‘ফাইজার-বায়োটেক’ এর তৈরি ভ্যাকসিন অনুমোদন পেয়েছে। তবে চীনা ফার্মাসিউটিক্যাল ফার্মের ‘সাইনোফার্ম’ ভ্যাকসিনের গুরুত্ব বেশি পাচ্ছে আমিরাতে।

এই ভ্যাকসিন দিয়েই পর্যায়ক্রমে দেশের সব নাগরিক ও অভিবাসীদের আনতে যাচ্ছে।যদিও এখনো তা স্বেচ্ছাভিত্তিতে রয়েছে। ‘সাইনোফার্ম’ ভ্যাকসিনের ট্রায়াল হয়েছে আরব আমিরাতে। ট্রায়ালে তার কার্যকারিতা ৮৬% নিশ্চিত হয়েছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় সংবাদমাধ্যম। যদিও আমিরাতের স্বাস্থ্য অধিদপ্তর তীব্র করোনাভাইরাস আক্রান্তদের ক্ষেত্রে ভ্যাকসিনটি ব্যবহার করে শতভাগ সাফল্য পাওয়া গেছে জানিয়ে বলেছে, এ ভ্যাকসিনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও প্রায় শূন্য। যারা করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়েছিলেন প্রাইভেট ও পাবলিক হাসপাতালে তাদেরও ইম্যুনিটি পরীক্ষা ও ভ্যাকসিন গ্রহণের সুবিধা দেওয়া হচ্ছে।

গত দেড় সপ্তাহে করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা ঊর্ধ্বগামী থাকায় বিশেষ করে দুবাই ২৭ জানুয়ারি থেকে প্রাইভেট পার্টি, বিয়ে কিংবা লাইভ অনুষ্ঠানের ওপর কড়া নিয়ন্ত্রণ জারি করতে যাচ্ছে। দুবাইর হাসপাতালগুলোতে ঝুঁকিপূর্ণ রোগীদের জীবন বাঁচাতে আবশ্যক নয় এমন অস্ত্রোপচার ১৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত স্থগিত রাখতে বলা হয়েছে। আর এ পরিস্থিতিতে সরকারের স্বাস্থ্য বিভাগ জোরদার করেছে তাদের প্রচারণা, বিলম্ব না করে সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে করোনাভাইরাস মোকাবেলায় ভ্যাকসিন গ্রহণের জন্য।

Leave a Reply