কম্বোডিয়ায় বিনা খরচে লিডারশিপ প্রোগ্রামের সুযোগ
ইয়ং লিডার্স সামিট ২০২১

কম্বোডিয়ায় বিনা খরচে লিডারশিপ প্রোগ্রামের সুযোগ

ইমিগ্রেশন নিউজ ডেস্ক : যেকোনো ক্ষেত্রে নেতৃত্বদানের দক্ষতা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। একবিংশ শতাব্দীর যোগ্য নেতৃত্ব দক্ষতা অর্জন প্রত্যেক তরুণের জন্য আবশ্যক। বিশ্বে নেতৃত্ব সংকট প্রকট। আর এই সংকট নিরসনে নানা উদ্যোগ গ্রহণের মাধ্যমে কাজ কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে বহু প্রতিষ্ঠান, দেশ ও ব্যক্তি। নেতৃত্ব বিকাশের তেমনই একটি নিয়মিত উদ্যোগ ইয়ং লিডার্স সামিট ২০২১।

প্রতি বছর এটি অনুষ্ঠিত হয় কম্বোডিয়ায়। আয়োজন প্রতিষ্ঠান- এশিয়া-ইউরোপ ফাউন্ডেশন। আগামী ফেব্রুয়ারি-মে মাসে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া সামিটের জন্য এরই মধ্যে আবেদন প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। আবেদনের শেষ সময় ৩ ফেব্রুয়ারি।
প্রতি বছর ইউরোপ-এশিয়ার ৫১ টি দেশ থেকে এই সম্মেলনে প্রতিশ্রুতিশীল তরুণ নেতারা অংশগ্রহণ করে থাকে। এবারের সম্মেলনে বাছাইয়ের মাধ্যমে ১৫০ জন তরুণ নেতার আবেদন গৃহীত হবে। ১৮-৩০ বছর বয়সী সৃজনশীর, প্রতিশ্রুতিশীল, উৎসাহি, দূরদর্শী ও আত্মবিশ্বাসী তরুণ নেতারা বিনা খরচের এই সামিটের জন্য আবেদন করতে পারেন।

আত্মবিশ্বাসী তরুণ নেতারা বিনা খরচের এই সামিটের জন্য আবেদন করতে পারেন।

এশিয়া-ইউরোপের মধ্যকার তরুণ নেতাদের পারস্পরিক চিন্তা-জ্ঞান, সামাজিক দৃষ্টি আদানপ্রদান সহ নানা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে এখানে আলোচনা, প্রশিক্ষণ ও কর্মশালা হয়ে থাকে। বিশেষ করে চারটি দিক-সুস্বাস্থ্য ও মানবকল্যাণ, গুণগত শিক্ষা, শালীন কর্ম ও অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি এবং জলবায়ু বিষয়ক আলোচনা, চিন্তার আদানপ্রদান হয়ে থাকে এই সম্মেলনে।
এছাড়াও মানবসম্পদ উন্নয়ন, অর্থনৈতিক ও প্রশাসনিক, জনস্বাস্থ্য, টেকসই উন্নয়ন, যোগাযোগ ও গণমাধ্যম , সংস্কৃতি, সুশাসন, শিক্ষা এবং অগ্রগতি বিষয়গুলো আলোচনায় স্থান পায়, যেসবের মধ্যদিয়ে তরুণদের নেতৃত্ব গুণাবলী বৃদ্ধি পাবে, যারা আগামীর দেশ ও সমাজ বিনির্মাণে নিজ নিজ স্থান থেকে মূল্যবান অবদান রাখতে পারবেন।
যেসব সুবিধা রয়েছে:
১. বিনামূল্যে রেজিস্ট্রেশনের সুযোগ
২. কম্বোডিয়ায় আসা-যাওয়ার বিমান খরচ
৩. থাকা-খাওয়া
৪. স্থানীয় পরিবহন খরচ
৫. প্রোগ্রাম সম্পন্ন করার পর সনদপত্র
৬. অংশগ্রহণকারীরা আন্তর্জাতিক মেন্টরের অধীনে দক্ষতা উন্নয়নে কাজ করার সুযোগ পাবেন
৭. সব ধরনের একাডেমিক এবং লিডারশিপ কোর্সের খরচ পাবেন

আবেদনের যোগ্যতা:
১. প্রার্থীকে অবশ্যই এশিয়া-্ইউরোপের ৫১টি দেশের নাগরিক হতে হবে
২. প্রত্যেক প্রফেশনাল, নিয়মিত শিক্ষার্থী, গবেষক, উদ্যোক্তা আবেদন করতে পারবেন
৩. প্রার্থীকে অবশ্যই ইংরেজি লেখা ও বলায় দক্ষ হতে হবে
৪. পড়ালেখার পাশাপাশি সহশিক্ষা কাযক্রমে অংশগ্রহণকারীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে
৫. প্রার্থীকে অবশ্যই ১৮-৩০ বছর বয়সী হতে হবে!

এই বিষয়ে আরও বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন নিচের লিংকে-

https://asef.org/projects/4th-asef-young-leaders-summit-asefyls4/

Leave a Reply