কানাডায় স্থায়ীভাবে বসবাস করলেও গুরুতর অপরাধে যে কেউ নির্বাসিত হতে পারেন
কানাডায় দীর্ঘদিন স্থায়ীভাবে বসবাস করলেও গুরুতর অপরাধের জন্য যে কেউ নির্বাসিত হতে পারেন।

কানাডায় স্থায়ীভাবে বসবাস করলেও গুরুতর অপরাধে যে কেউ নির্বাসিত হতে পারেন

ইমিগ্রেশন নিউজ ডেস্ক:

কানাডায় দীর্ঘদিন স্থায়ীভাবে বসবাস করলেও গুরুতর অপরাধের জন্য যে কেউ নির্বাসিত হতে পারেন। দেশটির অভিবাসন আইনে বলা হয়েছে, অন্য দেশের কোনো নাগরিক, দীর্ঘদিন কানাডায় বসবাস করলেও গুরুতর কোনে অপরাধের সঙ্গে জড়িয়ে থাকলে তাকে নির্বাসিত করা হবে। এছাড়াও এসব অপরাধের শাস্তি হিসেবে সর্বোচ্চ দশ বছর বা তার বেশি সময় ধরে কারাদণ্ড এবং সর্বনিম্ন ছয় মাসের কারাদণ্ডের নিয়ম রয়েছে। ১৯৭৫ সালে মাত্র সাত বছর বয়সে কানাডায় স্থায়ী হওয়া আদিনা হার্মস বারবরের ঘটনাটি কানাডার এই কঠোর আইনকে সামনে এনেছে।

হার্মস বারবর মুলত জার্মানির নাগরিক। মাত্র সাত বছর বয়সে তিনি কানাডায় এসে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন। কিন্তু যেকোনো কারণে দেশের নাগরিকত্ব লাভ করতে পারেননি । কানাডায়, স্থায়ী নাগরিকদের জন্য যেকোনো অপরাধমুলক কার্যক্রমের শাস্তি আর যাই হোক না কেনো, তাদের দেশ থেকে বিতাড়ন বা নির্বাসিত করা হয় না। কিন্তু হার্মস বারবর এর ক্ষেত্রে এটি ব্যতিক্রম। একদিকে নাগরিকত্ব না থাকা এবং সম্প্রতি বিভিন্ন ধরনের অপরাধ কার্যক্রমের সাথে জড়িয়ে পড়ায় দেশের নাগরিকত্ব আইনের আওতায় দেশ ত্যাগের মতো শাস্তির সম্মুখীন হতে হচ্ছে তাকে। কারণ তিনি কানাডায় বাসিন্দা হয়েছেন অন্য দেশ থেকে।

তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অপরাধ কর্মকাণ্ড প্রমাণিত হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে, ২০১৫ সালে ৫ হাজার মার্কিন ডলার জালিয়াতিতে হার্মস বারবরকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়। এ অপরাধের শাস্তি হিসেবে ২০১৬ সালে ৫ বছরের জন্য তাকে কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এই জেল চলাকালীনই ২০১৭ সালে  নথিপত্র নকলের দায়ে আরও দুই বছরের শাস্তি যুক্ত হয়ে যায় তার বিরুদ্ধে।

হার্মস বারবর ও তার অবস্থান এবং অপরাধের ধরন অনুযায়ী কানাডার অভিবাসন আইনে শাস্তির আওতায় পড়েন। ২০১৭ সালে কানাডিয়ান বর্ডার সার্ভিস এজেন্সির এক কর্মকর্তা তাকে তার অপরাধের শাস্তি হিসেবে দেশ থেকে নির্বাসনের কথা জানিয়ে দেন। তার জবাবে প্রাতিষ্ঠানিক এবং পারিবারিক জীবনকে উল্লেখ করে হার্মস বারবর দেশটিতে অবস্থানের অনুমতির জন্য আবেদন করেন। তিনি কানাডায় তার মেয়ে, অন্য পরিবার ও চাকরির তথ্য উল্লেখ করেন।

এর কিছুদিন পর ২০১৮ সালে কানাডিয়ান বর্ডার সার্ভিস এজেন্সির অন্য এক কর্মকর্তা হার্মস বারবর এর গ্রহণযোগ্যতার জন্য সুপারিশ করেন। তার পক্ষের আইনজীবীরা তার বিরুদ্ধে রায়টিকে  পুনরায় বিবেচনার জন্য একটা ওয়ার্নিং লেটার প্রেরণ করে কেসটি নিষ্পত্তির চেষ্টা চালিয়ে যান। কিন্তু তাদের প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয় এবং ট্রাইবুনাল তাকে দেশে বসবাসের অনুপোযোগী বলেই আখ্যায়িত করেন।

এরপর তিনি ফেডারেল কোর্টে সুপারিশের জন্য আবেদন করেন। সেখানে তিনি যুক্তি দিয়ে বলেছিলেন যে, তাকে নির্বাসনের আদেশ দেওয়াটা অযৌক্তিক এবং কর্মকর্তা ও মন্ত্রীর প্রতিনিধি, যিনি তাকে নির্বাসনের আদেশ দেন উভয় তার পদ্ধতিগত ন্যায়সঙ্গত অধিকার লংঘন করেছেন। কিন্তু ফেডারেল কোর্ট তার যুক্তিকে  আমলে নেননি।

এর ফলে এই মুহুর্তে তার হাতে আর তেমন যুক্তি দেওয়ার মতো যুক্তি নেই। কানাডা থেকে নির্বাসনের আদেশ কার্যকর হয়ে গেলে পুনরায় ফেরার অনুমতি মেলা ভার। হার্মস বারবর এর ঘটনা থেকে স্পষ্ট যে, কানাডায় দীর্ঘদিন স্থায়ীভাবে বসবাস করলেও গুরুতর অপরাধের জন্য যে কেউ নির্বাসিত হতে পারেন।

Leave a Reply