কুয়েতে পাপুলের কারাদণ্ড চার থেকে বেড়ে সাত বছর
শহিদ ইসলাম লক্ষ্মীপুর-২ আসন থেকে সাংসদ হয়েছিলেন। কুয়েতে কারাদণ্ডাদেশ হওয়ার পর সাংসদ পদ হারান তিনি।

কুয়েতে পাপুলের কারাদণ্ড চার থেকে বেড়ে সাত বছর

ইমিগ্রেশন নিউজ ডেস্ক :

কুয়েতে বাংলাদেশের সাবেক সংসদ সদস্য মোহাম্মদ শহীদ ইসলাম ওরফে কাজী পাপুলের কারাদণ্ড চার বছর থেকে বাড়িয়ে সাত বছর করেছে দেশটির আপিল আদালত। কুয়েতি গণমাধ্যম আল-কাবাস সোমবার (২৬ এপ্রিল) জানায়,পাপুল ছাড়া কুয়েতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অ্যাসিসটেন্ট আন্ডার-সেক্রেটারি মেজর জেনার মাজন আল-জাররাহ ও সাবেক সংসদ সদস্য প্রার্থী সালাহ খোরশিদের কারাদণ্ডের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। আর দেশটির সংসদ সদস্য সাদুন হামমাদকে খালাস দিয়েছেন বলে জানায় আল-কাবাস।

কুয়েতে শহিদ ইসলামের বিরুদ্ধে দুটি মামলা হয়। একটি ঘুষ লেনদেন ও মানব পাচারের অভিযোগে এবং অন্যটি করা হয় অর্থ পাচারের অভিযোগে। এর মধ্যে ঘুষ লেনদেনের দায়ে আগেই তার চার বছরের কারাদণ্ডাদেশ হয়। একই মামলায় এবার মানব পাচারের দায়ে আদালত ৩ বছর কারাদণ্ড ও ২০ লাখ কুয়েতি দিনারের অর্থদণ্ড দিলেন। অন্যদিকে তার বিরুদ্ধে অর্থ পাচারের মামলাটি এখনো বিচারাধীন।

মানব ও অর্থ পাচারের অভিযোগে শহিদকে গত বছরের ৬ জুন রাতে তাঁর কুয়েত সিটির বাসা থেকে সে দেশটির আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কর্মকর্তারা আটক করেন। শহিদ ইসলাম লক্ষ্মীপুর-২ আসন থেকে সাংসদ হয়েছিলেন। কুয়েতে কারাদণ্ডাদেশ হওয়ার পর সাংসদ পদ হারান তিনি। 

Leave a Reply