কোরিয়া অভিবাসীদের জন্য বাংলাদেশে দূতাবাসের ‘স্বাস্থ্য কথা’
কোরিয়া অভিবাসীদের জন্য বাংলাদেশে দূতাবাসের ‘স্বাস্থ্য কথা’

কোরিয়া অভিবাসীদের জন্য বাংলাদেশে দূতাবাসের ‘স্বাস্থ্য কথা’

সাম্প্রতিক সময়ে সাউথ কোরিয়ায় কর্মরত শ্রমিকদের মাঝে অকাল মৃত্যু পরিলক্ষিত হচ্ছে। সিউলস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস বলছে, গত ২০২০ সালে সাউথ কোরিয়ায় হৃদরোগে ৬ জন অভিবাসীর মৃত্যু হয়েছে। চলতি বছর শুধু জানুয়ারিতে ৩ জন তরুণ শ্রমিক হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

এরকম কঠিন পরিস্থিতিতে দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখা রেমিট্যান্স যোদ্ধাদের স্বাস্থ্য বিষয়ে সচেতনতার জন্য সাউথ কোরিয়ার সিউলে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস আয়োজন করেছে স্বাস্থ্য বিষয়ক অনুষ্ঠান ‘স্বাস্থ্য কথা’।

বৃহস্পতিবার ভার্চুয়াল প্লাটফর্মের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. আহমেদ মুনিরুল সালেহীন।

এসময় তিনি বলেন, আমরা বিশ্বাস করি যে, দেশের বর্তমান অর্থনৈতিক অবস্থাকে এগিয়ে নিতে  অবদান রাখছেন যারা, তাদের অন্যতম বিদেশে কর্মরত শ্রমিক বা অভিবাসীরা সবার আগে। তাদের শ্রম ও ঘামে দেশের অর্থনীতির চাকা সচল আছে।
স্বাভাবিকভাবে যারা এই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন, তাদের সর্বাঙ্গীন কল্যাণ নিশ্চিত করা সরকারের অন্যতম অঙ্গীকার। সেটা আমরা চেষ্টা করছি। তারই ধারাবাহিকতায় এমন আয়োজন করেছে দূতাবাস, যা অত্যন্ত প্রশংসনীয় উদ্যোগ।

তিনি বলেন, আমরা সুষ্ঠু, নিরাপদ ও দায়িত্বশীল অভিবাসন নিশ্চিত করতে চাই।
তার প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। আজকের আয়োজনটি আমাদের রেমিট্যান্স যোদ্ধাদের অনেক বেশি উপকারে আসবে বলে বিশ্বাস করি।

স্বাস্থ্য কথা অনুষ্ঠানে ‘শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্য: কীভাবে ভালো রাখবেন’-বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করেন জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের সহকারী অধ্যাপক ডা. হেলাল উদ্দিন আহমেদ।

স্বাস্থ্য সচেতনতা বিষয়ে বলতে গিয়ে তিনি বলেন, শুধু শরীর সুস্থ থাকাই সুস্বাস্থ্য বুঝানো হয় না। শারীরিক, মানসিক ও সামাজিকভাবে সুস্থ থাকাই মূলত সুস্বাস্থ্য। এর জন্য নিয়মিত খাদ্য, ব্যায়াম, ঘুম, ক্ষতিকর অভ্যাস বর্জন ও স্বাস্থ্যকর অভ্যাস পালন করা গুরুত্বপূর্ণ।

অনুষ্ঠানে মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে আলোচনা করেন ক্লিনিক্যাল সাইকোলজিস্ট ফারজানা শারমিন।সমাপনী বক্তব্য রাখেন সাউথ কোরিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত আবিদা ইসলাম। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সাউথ কোরিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রথম সচিব (শ্রম) মকিমা বেগম। অনুষ্ঠানে সাউথ কোরিয়ায় বিভিন্ন ক্ষেত্রে কর্মরত অনেক অভিবাসী অংশগ্রহণ করেন।

Leave a Reply