চলে গেলেন প্রিন্স ফিলিপ
চলে গেলেন প্রিন্স ফিলিপ

চলে গেলেন প্রিন্স ফিলিপ

ইমিগ্রেশন নিউজ ডেস্ক :

যুক্তরাজ্যের রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ এর স্বামী, ডিউক অব এডিনবরা প্রিন্স ফিলিপ মারা গেছেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৯৯ বছর। বাকিংহাম প্যালেস থেকে দেয়া আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে। রাজপ্রসাদের বিবৃতিতে বলা হয়,“কুইন এলিজাবেথ গভীর দুঃখের সাথে জানাচ্ছেন যে, তার প্রিয়তম স্বামী প্রিন্স ফিলিপ, ডিউক অব এডিনবরা শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন। আজ শুক্রবার সকালে উইন্ডসর ক্যাসলে রয়্যাল হাইনেস দ্যা প্রিন্স মৃত্যুবরণ করেন।

ব্রিটিশ রাজপরিবারের ইতিহাসের একট দীর্ঘ অংশ জুড়ে রয়েছেন প্রিন্স ফিলিপ। সম্প্রতি তিনি সংক্রমণ জনিত কারণ কিং এডওয়ার্ড সপ্তম হসপিটাল এবং সেন্ট বার্থোমিউজ হসপিটালে চিকিৎসা গ্রহণ করেন। সত্তর বছরেরও বেশি সময় ধরে প্রিন্স ফিলিপ রানী এলিজাবেথ এর জীবন সঙ্গী হিসেবে তাঁর সাথে ছায়ার মতো ছিলেন। রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ তার ৭০ তম বিয়ে বার্ষিকীতে বলেছিলেন, প্রিন্স ফিলিপ হচ্ছেন তার শক্তির উৎস। বিবিসি জানায়, রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের সঙ্গে প্রিন্স ফিলিপের বিয়ে হয় ১৯৪৭ সালে। এর পাঁচ বছর পর ব্রিটিশ সিংহাসনে আরোহণ করেন দ্বিতীয় এলিজাবেথ।

তবে প্রিন্স ফিলিপের মৃত্যু কী কারণে হয়েছে, তা তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি। প্রিন্স ফিলিপ ও রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের চার সন্তান ও আট নাতি-নাতনি রয়েছে। তাঁদের নাতি-নাতনিদের সন্তান রয়েছে ১০ জন। এই দম্পতির প্রথম সন্তান প্রিন্স অব ওয়েলস প্রিন্স চার্লস জন্মগ্রহণ করেন ১৯৪৮ সালে। এরপর তাঁর বোন প্রিন্সেস রয়্যাল প্রিন্সেস অ্যান জন্মগ্রহণ করেন ১৯৫০ সালে। ডিউক অব ইয়র্ক প্রিন্স অ্যান্ড্রুর জন্ম হয় ১৯৬০ সালে। প্রিন্স ফিলিপ ও রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের চতুর্থ সন্তান আর্ল অব ওয়েসেক্স প্রিন্স এডওয়ার্ড জন্মগ্রহণ করেন ১৯৬৪ সালে।

প্রিন্স ফিলিপ গ্রিসের করফু দ্বীপে ১৯২১ সালের ১০ জুন জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবা গ্রিস ও ডেনমার্কের প্রিন্স অ্যান্ড্রু ছিলেন হেলেনসের রাজা প্রথম জর্জের ছোট সন্তান। আর প্রিন্স ফিলিপের মা প্রিন্সেস অ্যালিস ছিলেন লর্ড লুইস মাউন্টব্যাটনের মেয়ে। প্রিন্সেস অ্যালিস ব্রিটিশ রানি ভিক্টোরিয়ার নাতনির সন্তান।

তার মৃত্যুতে সারাদেশে জাতীয় ও রাজকীয় পতাকা অর্ধনমিত করা হয়েছে। টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের অফিস ভবন টাউন হলেও জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করা হয়েছে।

Leave a Reply