ট্রাভেল ব্লগ কীভাবে লিখবেন?
প্রতিটি মানুষেরই অন্যতম প্রিয় শখের মধ্যে ভ্রমণ বা ঘুরে বেড়ানো ..

ট্রাভেল ব্লগ কীভাবে লিখবেন?

ইমিগ্রেশন নিউজ ডেস্ক :

ভ্রমণ করেন না- বিশ্বে এমন মানুষ পাওয়া দুষ্কর। প্রতিটি মানুষেরই অন্যতম প্রিয় শখের মধ্যে ভ্রমণ বা ঘুরে বেড়ানো প্রথম দিকে থাকে। কথা হলো, আপনি নিয়মিত ঘুরে বেড়াচ্ছেন, নতুন নতুন জায়গা খুঁজে দেখে আসছেন। দারুণ দারুণ সব অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করছেন। কিন্তু আপনি কিছুই লিখছেন না, অভিজ্ঞতার প্রকাশ করছেন না- বিষয়টি খুবই নেতিবাচক দেখায়। জীবনের মূল্যবান সময়গুলো লিখে রাখা জরুরি। হাল আমলে ভ্রমণের মাধ্যমে লেখালেখি তথা ট্রাভেল ব্লগ লিখে দারুণ সাড়া ফেলছেন অনেকে। সেই সঙ্গে রোজগারও করছেন। সারাবিশ্বে ট্রাভেল ব্লগের কদর বেড়েই চলেছে। একজন ট্রাভেলার হিসেবে আপনিও লিখতে চান ব্লগ। তুলে ধরতে চান দেশ-বিদেশের নানা জায়গা ঘুরে বেড়ানোর অভিজ্ঞতাগুলো। কিন্তু জানে না কীভাবে ব্লগ লিখতে হবে। তাহলে চলুন কিছুটা ধারণা নেওয়া যাক—!

‘লেখার সিদ্ধান্ত গ্রহণ’
আপনি ভ্রমণে বের হচ্ছেন। এমন সময় সিদ্ধান্ত নিতে হবে যে, আপনি ভ্রমণ ব্লগ লিখবেন। অতএব সঙ্গে লেখার আনুসঙ্গিক বিষয়গুলো-নোটপ্যাড, ল্যাপটপ, ক্যামেরা ইত্যাদি সঙ্গে নিতে ভুলবেন না। সাথে স্মার্টফোন তো থাকবেই। আর থাকবে পর্যাপ্ত চার্জের জন্য পাওয়ারব্যাংক। এবার বেরিয়ে পড়ুন। আর যাত্রার মুহুর্তগুলোর গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নোট করুন। ছবি তুলতে একেবারেই ভুলবেন না যেন!

‘বিষয় নির্ধারণ’
খ্যাতিমান ব্লগারেরা নির্দিষ্ট বিষয়কে ধরে লিখে থাকেন। যেমন-ন্যাচার ট্রাভেল, ফিমেল ট্রাভেল, ফ্যামিলি ট্রাভেল, ফ্যাশন ও লাক্সারি ট্রাভেল, ইউরোপ ট্রাভেল, সাইকেল ট্যুর, ইয়ুথ ট্রাভেল ইত্যাদি। মূলত কোন শ্রেণির পাঠককে লক্ষ্য করে আপনি লিখবেন তা স্থির করতে হবে। যে বিষয়ে লিখবেন সে বিষয়ে আপনাকে অভিজ্ঞ হতে হবে। নিজস্ব সুস্পষ্ট ধারণা থাকতে হবে। আপনার একটি স্বাতন্ত্র্যবোধ থাকবে লেখনিতে, যা পাঠকরা খুঁজে পাবেন।

‘গুরুত্বপূর্ণ তথ্যের সমাহার’
আপনি যে ব্লগ লিখবেন তা অনেকে পড়বেন। পাঠকদের আগ্রহ তৈরিতে কাজ করতে হবে। তার জন্য আপনার গুরুত্বপূর্ণ তথ্যের সমন্বয় করতে হবে। আপনাকে মনে করতে হবে যে, আপনি যেখানে যাবেন সেখানকার ভ্রমণ খরচ, হোটেল ভাড়া, খাবার খরচ সহ যাবতীয় বিষয় লেখনিতে উঠে আসতে হবে।

‘গল্প আকারে লিখুন’
ভ্রমণ ব্লগ লিখতে হয় মজা সহকারে। লেখার পরতে পরতে রসবোধ, কৌতুহলী গল্প ও বিভিন্ন মজার ঘটনার বর্ণনা উল্লেখ করলে পাঠক মনোযোগ দিয়ে পড়েন। যখন ব্লগ লিখবেন তখন একটি ভলো ও সুন্দর রূচি সম্মত গল্প সাজিয়ে নিবেন। এমন চমক জাগানো গল্প দিয়ে শুরু করবেন, পাঠকরা লেখা শেষ করেও যেন শেষ করতে না পারেন। একটি ছোট গল্পের মতো হতে পারে-শেষ হয়েও হলো না শেষ!

‘লেখা হবে বিস্তারিত’
পাঠকদেরকে আপনার ভ্রমণের বিস্তারিত জানাতে হবে। ওই স্থানে কীভাবে গেলেন, কোন পথে গেলেন, কেমন ব্যয় হলো, কোন পরিবহন ব্যবহার করেছেন, যাত্রাপথ কেমন, নিরাপত্তার দিক ইত্যাদি যাবতীয় লিখবেন। তুলে ধরতে হবে পারিপার্শ্বিক সব বিষয়। মনে করুন, আপনি কোনো স্থানে গেলেন, সেটি ঐতিহাসিক একটি জায়গা। আপনাকে সে স্থানের ইতিহাস তুলে ধরে মজাদার তথ্য নিয়ে আসতে হবে। পাঠকদের এর বিস্তারিত জানাতে হবে।

‘একাধিক ‍ছবি যুক্ত করুন’
আপনি কোনো জায়গায় ভ্রমণ করেছেন কিনা তার প্রমাণ ছবি। বিভিন্ন অ্যাঙ্গেলে ছবি তুলে নিবেন। গ্রুপ, পারিবারিক কিংবা ব্যক্তিগত ছবির প্রাকৃতিক দৃশ্য দেখে তুলবেন। একটি লেখায় একাধিক ছবি যুক্ত করতে পারেন। ভালো ভালো ছবি লেখাকে আকর্ষণীয় ও নির্ভরযোগ্য করে তুলে।

‘বিশ্বস্ততা ও সততা বজায় রাখা’
ভ্রমণ ব্লগ লেখার ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ বিশ্বস্ততা ও সততা বজায় রাখতে হবে। কোনো স্থানে না গিয়ে ইন্টারনেট সার্চ করে লিখে ফেললে হবে না। এতে করে পাঠক আপনার প্রতি আস্থাহীন হয়ে পড়বেন। নিজের সাধ্য মতো যে স্থানে যাবেন সেটা নিয়েই লিখুন, সততা বজায় রেখে লিখুন। আর সর্বোচ্চ ধৈর্য ধরে পাঠক তৈরিতে নতুন নতুন ধারণা নিয়ে আসুন।

Leave a Reply