ডলার এন্ডোর্সমেন্ট কী এবং কেন
ডলার এন্ডোর্সমেন্ট

ডলার এন্ডোর্সমেন্ট কী এবং কেন

ইমিগ্রেশন নিউজ ডেস্ক : নিজ দেশ থেকে অন্য দেশে গেলে সর্বপ্রথম দরকার পাসপোর্ট। তারপর প্রয়োজন গন্তব্য দেশের ভিসা। সেই সঙ্গে যে জিনিসটা দরকার সেটি হলো বিদেশে মুদ্রা ব্যবহারের অনুমতি বা এন্ডোর্স। কোনো দেশে যাওয়ার আগে ডলার এন্ডোর্সমেন্ট অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়।
সাধারণত এনডোর্সমেন্ট হচ্ছে, নিজ দেশ থেকে বিদেশে গিয়ে বিদেশি মুদ্রা ব্যবহার করার অনুমতি বা স্বীকৃতি প্রাপ্তি। পাসপোর্টের শেষের দিকের পেজগুলোতে একটা সিল দিয়ে সেটার ওপর বৈদেশিক মুদ্রার পরিমাণ লিখে দেওয়া থাকে, যাকে বলা হয় এন্ডোর্সমেন্ট। দুই ভাবে ডলার এন্ডোর্স করা যায় ।

ক্যাশ ডলার এন্ডোর্স করা : ক্যাশ ডলার আবার ব্যাংক ও মানি এক্সচেঞ্জ থেকেও এনডোর্স করা যায়। তবে ব্যাংকে ঝামেলা পোহাতে হয় যদিও। সব ব্যাংকে এবং সব শাখায় এন্ডোর্স করানোও হয় না। যেসব ব্যাংকের AD (Authorized Dealer) শাখা, সেগুলোতে করানো হয়। ঢাকার গুলশানে প্রায় সব ব্যাংকের একটা করে AD ব্রাঞ্চ আছে) আবার ব্যাংক ভেদে রিকুয়ারমেন্ট আলাদা। বেশিরভাগ ব্যাংকে নিজের একাউন্ট থাকতে হয়। অনেক ব্যাংক ভিসা ফরম দেখতে চায়। সাথে কিছু
এক্সট্রা ফিও লাগে। ব্যাংকে গিয়ে টাকা দিয়ে ডলার কিনে সেই পরিমাণ পাসপোর্টে এনডোর্স করে নিতে হয়। এক্ষেত্রে সোনালী ব্যাংক, মতিঝিল শাখায় করা যেতে পারে। সিটি ব্যাংক গুলশান শাখায়ও করা যায়। ক্যাশ ডলার এনডোর্স :
করলে সাথে একটা ফরেন কারেন্সি সার্টিফিকেট দেওয়া হয় ব্যাংক থেকে।পাসপোর্টের এনডের্সমেন্ট পেজের ফটোকপি, আর সাথে সেই ফরেন কারেন্সি সার্টিফিকেট (ডলার কেনার ডকুমেন্ট) ভিসা আবেদন সাথে জমা দিতে হয়। আর অনুমোদিত মানি এক্সচেঞ্জে ঝামেলা ছাড়াই ডলার এন্ডোর্সমেন্ট করা যায়। এ ক্ষেত্রে পাসপোর্ট, টিকিট ও ভিসার ফটোকপি নিয়ে গেলে হয়।

*ক্রেডিট কার্ড বা প্রিপেইড ট্রাভেল কার্ড এনডোর্সমেন্ট আপনার যদি কোনো ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড থাকে, যেটি দিয়ে আন্তর্জাতিক লেনদেনের সুযোগ রয়েছে, সেই কার্ডটি এনডোর্স করে নিতে পারেন। কার্ড নাথাকলে বিভিন্ন ব্যাংক থেকে খুব সহজেই প্রিপেইড ট্রাভেল কার্ড সংগ্রহ করা যায়। এক্ষেত্রে ইবিএল এর একুয়া বেশ পপুলার। সাধারণত ডেবিট কার্ড থাকলে বিভিন্ন ব্যাংক থেকে খুব সহজেই প্রিপেইড ট্রাভেল কার্ড সংগ্রহ করা যায়। এক্ষেত্রে ইবিএল এর একুয়া বেশ পপুলার। সাধারণত ডেবিট কার্ড এন্ডোর্স করা যায় না। ক্রেডিট কার্ড এনডোর্স করার জন্য পাসপোর্ট আর কার্ড নিয়ে সেই কার্ড ইস্যু করা ব্যাংকে যেতে হবে। কত ডলারের জন্য এনডোর্স করতে চান তা লিখে দিতে হবে।
সার্কভুক্ত দেশগুলোর জন্য সর্বোচ্চ ৫০০০ ডলার আর নন সার্কভুক্ত দেশে সর্বোচ্চ ৭০০০ ডলার এন্ডোর্স করা হয়। ভারতীয় ভিসার জন্য সর্বনিম্ন ১৫০ মার্কিন ডলার এনডোর্স করতে হয়। এন্ডোর্স সম্পন্ন করার পর পাসপোর্টের এন্ডোর্সমেন্ট পেজের ফটোকপি আর সাথে কার্ডের দুই পাশের ফটোকপি ভিসা আবেদনের সাথে জমা দিতে হবে।

Leave a Reply