তুরস্কের মাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফলে সবাইকে ছাপিয়ে শরণার্থী কিশোর
সিরিয়ার শরণার্থী দিলাওয়ার সাফো পেল তুরস্কের মাধ্যমিকে সর্বোচ্চ নম্বর

তুরস্কের মাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফলে সবাইকে ছাপিয়ে শরণার্থী কিশোর

ইমিগ্রেশন নিউজ ডেস্ক

সিরিয়ার শরণার্থী কিশোর দিলাওয়ার সাফো তুরস্কের মাধ্যমিক পরীক্ষার (এসএসসি) চূড়ান্ত ফলাফলে সর্বোচ্চ নম্বর পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে।তুরস্কের আনাদোলু বার্তা সংস্থা জানায়, ২০১১ সাল থেকে সিরিয়ায় ভয়াবহ যুদ্ধ চলছে। সেই যুদ্ধ থেকে পালিয়ে মা–বাবার সঙ্গে তুরস্কে আশ্রয় নেয় দিলাওয়ার সাফো।

গত ৬ জুন তুরস্কে এ পরীক্ষা হয়েছে। গত বুধবার ফল ঘোষণা করা হয়। দেশটির শিক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, চলতি বছর ৩৬টি প্রদেশের ৯৭ জন শিক্ষার্থী শতভাগ নম্বর পেয়েছে। এর মধ্যে যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়া থেকে আসা দিলাওয়ার সাফো অন্যতম।

কুরতালান সালাউদ্দিন আইয়ুবী ঈমাম হাতিপ উচ্চমাধ্যমিক স্কুলের শিক্ষার্থী সে।
প্রাথমিকে আট বছর পড়ার পরই মাধ্যমিক পরীক্ষা দিতে পারে তুরস্কের শিক্ষার্থীরা। দিলাওয়ার সাফো জানায়, ২০১৫ সালে তুরস্কে এসে স্কুলে ভর্তি হয় সে। ওই সময় তুর্কি ভাষা জানত না। এখন আরবি, কুর্দিস, তুর্কি ও ইংরেজি ভাষা জানে সে।

সাফল্যর বিষয়ে দিলাওয়ার বলে, আমি দুই বছর ধরে পরীক্ষায় কীভাবে ভালো করা যায়, তা নিয়ে কঠোর পরিশ্রম করেছি। মহামারিতে যখন পড়ালেখা বন্ধ হওয়ার উপক্রম, তখন শিক্ষকেরা আমাদের অনুপ্রাণিত করেছেন।

সাফল্যের কৃতিত্ব শিক্ষকদের দিয়ে দিলাওয়ার সাফো বলে, করোনার সময় শিক্ষকেরা হোয়াটসঅ্যাপে নিয়মিত অনুশীলন প্রশ্নপত্র পাঠিয়ে সহায়তা করেছেন। পছন্দের বিষয় গণিত উল্লেখ করে সে বলে, ‘ভবিষ্যতে একজন প্রকৌশলী (ইঞ্জিনিয়ার) হতে চাই।’

দিলাওয়ার সাফো সিরিয়া থেকে মা–বাবার সঙ্গে প্রথমে তুরস্কের সিরত প্রদেশের কুরতালানে আশ্রয় নেয়। মা–বাবা উভয়ই দরজি। তার ছোট দুই ভাই-বোন আছে।
জাতিসংঘের কর্মকর্তা জানান, ২০১১ সালের যুদ্ধের পর থেকে কয়েক লাখ লোকের মৃত্যু হয়েছে। আর ১ কোটি মানুষ নিজের ঘরবাড়ি ছেড়ে অন্য জায়গায় শরণার্থী হয়েছে। এর মধ্য ৪০ লাখ শরণার্থী আছে তুরস্কে।

Leave a Reply