দৃষ্টিশক্তি ছাড়াই এভারেস্ট জয়!
দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ঝাং হং এশিয়ায় প্রথম দৃষ্টিহীন ব্যক্তি হিসেবে মাউন্ট এভারেস্ট জয় করেছেন ।

দৃষ্টিশক্তি ছাড়াই এভারেস্ট জয়!

ইমিগ্রেশন নিউজ ডেস্ক :

ইচ্ছাশক্তির কাছে শারীরিক সব বাধা তুচ্ছ। সেই কথা আবারও প্রমাণ করেছেন চীনের নাগরিক দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ঝাং হং। এশিয়ায় প্রথম দৃষ্টিহীন ব্যক্তি হিসেবে মাউন্ট এভারেস্ট জয় করেছেন তিনি। ৪৬ বছর বয়সী ঝাং নেপালের দিক থেকে মাউন্ট এভারেস্টে ওঠেন। বিশ্বে তিনিই তৃতীয় অন্ধ ব্যক্তি, যিনি এভারেস্ট জয় করলেন। খবর রয়টার্সের।

ঝাং বলেন, ‘আপনি পঙ্গু নাকি স্বাভাবিক, সেটি কোনো বিষয় নয়। আপনি দৃষ্টিশক্তি হারিয়েছেন কি না অথবা আপনার হাত বা পা নেই, এটিও কোনো বিষয় নয়। আসল কথা হলো, আপনার মনোবল দৃঢ় কি না। মনোবল দৃঢ় থাকলে অন্যরা না পারলেও আপনি কাজ শেষ করতে পারবেন।’

২৪ মে ঝাং এভারেস্টের ৮ হাজার ৮৪৯ মিটার উঁচুতে ওঠেন। গত বৃহস্পতিবার তিনি বেসক্যাম্পে ফিরে আসেন। চীনের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের চংকুয়াং শহরে ঝাং জন্ম নেন। ২১ বছর বয়সে গ্লুকোমার কারণে অন্ধ হয়ে যান। প্রথমে ২০০১ সালে এরিক ওয়েহেনমায়ের নামের অন্ধ এক মার্কিন পর্বতারোহী এভারেস্ট জয় করেন। তিনিই অনুপ্রাণিত করেন ঝাংকে। বন্ধু ও পর্বত আরোহণের গাইড কিয়াং জির কাছ থেকে প্রশিক্ষণ নেওয়া শুরু করেন ঝাং।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে গত বছর মাউন্ট এভারেস্টে আরোহণ বন্ধ করে দেওয়া হয়। গত এপ্রিলে নেপাল মাউন্ট এভারেস্ট আবার বিদেশিদের জন্য খুলে দেয়।এভারেস্টে আরোহণের অভিজ্ঞতার কথা বলতে গিয়ে ঝাং বলেন, পর্বতে আরোহণের সময় তিনি খুবই ভয় পাচ্ছিলেন। তিনি দৃষ্টিহীন হওয়ায় মাঝেমধ্যে পড়ে যাচ্ছিলেন। ঝাং বলেন, পর্বত আরোহণের কাজটি কঠিন। এতে বিপদও রয়েছে। সব প্রতিকূলতা পার হয়েই তাঁকে এগিয়ে যেতে হয়েছে।

Leave a Reply