নিউইয়র্কে টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধন ৭ জুন
সিডব্লিউএ ১১৮২ ও বাপার উদ্যোগI টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধন ৭ জুন

নিউইয়র্কে টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধন ৭ জুন

মনজুরুল হক :

যুক্তরাষ্ট্রের সদা চঞ্চল থাকা নিউইয়র্ক নগরে স্বাভাবিক কোলাহল ফিরিয়ে আনার অনন্য প্রয়াস নিয়েছে পেশাজীবীরা। নিউইয়র্ক পুলিশে কর্মরত বাংলাদেশি অফিসার ও ট্রাফিক অফিসারদের সমন্বয়ে নগরে শুরু হচ্ছে টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট।

নগরের জ্যামাইকা এলাকায় ১৬-১০ বেসলি পন্ড পার্কে এই টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধন হতে যাচ্ছে আগামী ৭ জুন। দুপুর সাড়ে ১২টায় এ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন—এনওয়াইপিডির পুলিশ কমিশনার ডারমট শিয়া ও ট্রাফিক অফিসারদের সংগঠন কমিউনিকেশন ওয়ার্কার অব আমেরিকার (সিডব্লিউএ) এর কেন্দ্রীয় ভাইস প্রেসিডেন্ট ডেনিস ট্রেনর।

বাংলাদেশি আমেরিকান পুলিশ অ্যাসোসিয়েশনের (বাপা) প্রেসিডেন্ট ক্যাপ্টেন কারাম চৌধুরী ও সিডব্লিউএ ১১৮২ এর ভারপ্রাপ্ত প্রশাসক রিকি মরিসন এ উদ্বোধনী সভায় উপস্থিত থাকার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের আয়োজন নিয়ে কথা বলতে গিয়ে রিকি মরিসন প্রথম আলো উত্তর আমেরিকাকে বলেন, মহামারি চলাকালীন নগরের বিপর্যস্ত অবস্থায় ট্রাফিক অফিসাররা দিন রাত কাজ করেছেন। অবরুদ্ধ হয়ে পড়া নিউইয়র্ক নগরের ইতিহাসের অন্ধকারতম সময়ে এ নগরের অগ্রসর সারির এ পেশাজীবীরা নিজের জীবনকে বিপন্ন করে জনসমাজের পাশে দাঁড়িয়েছেন।

এ পেশাজীবীদের সংগঠন সিডব্লিউএ ১১৮২ এর নেতা হিসেবে নিজে গর্বিত উল্লেখ করে রিকি মরিসন বলেন, বেদনার সঙ্গে বলতে হচ্ছে আমরা বহু সদস্যকে হারিয়েছি। ট্রাফিক অফিসাররা নিজের ও পরিবারের সদস্যদের জীবন বিপন্ন করেছেন। সংগঠন হিসেবে সিডব্লিউএ ১১৮২ মহামারির তাণ্ডবের সময় জরুরি সাহায্য নিয়ে জনসমাজের পাশে থেকেছে।

রিকি মরিসন আরও বলেন, নিউইয়র্ক নগর ঘুরে দাঁড়াচ্ছে। কঠিন সময় পেরিয়ে এ ঘুরে দাঁড়ানোর সময়টিও বেশি গুরুত্বের। বহু জাতি, বহু সংস্কৃতির নগরে চাঞ্চল্য ফিরিয়ে আনার জন্য নানা প্রয়াস নেওয়া হয়েছে। নগরের সব জাতিগোষ্ঠীর মানুষকে নিয়ে ক্রীড়া, সংস্কৃতি এবং বিনোদনের মাধ্যমে স্বাভাবিক কোলাহলে এগিয়ে যাওয়ার প্রয়াস অব্যাহত থাকবে। মানুষের আনন্দ উৎসবেও এসব কর্মজীবীরা ক্রিকেট টুর্নামেন্টের আয়োজন করে নিউইয়র্ক নগরে জীবনের স্পন্দন ছড়িয়ে দেওয়ার প্রয়াস নিয়েছেন।

টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট নিয়ে বাপার সভাপতি ক্যাপ্টেন কারাম চৌধুরী বলেন, নিউইয়র্কে দিনে দিনে বাংলাদেশি জনসমাজ একটি গুরুত্বপূর্ণ কমিউনিটি হয়ে উঠেছে। নিউইয়র্ক পুলিশ ও ট্রাফিকে বাংলাদেশি কর্মকর্তা এখন হাজারেরও বেশি। নগরের কোলাহল ফিরিয়ে জনমনে স্বাভাবিকত্ব নিয়ে আসার প্রয়াস হিসেবে টি-২০ টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয়েছে।

বাপার মিডিয়া লিয়াজোঁ কর্মকর্তা জামিল সারওয়ার বলেন, তাঁরা চেষ্টা করছেন টি-২০ টুর্নামেন্টকে নিউইয়র্কের জনসমাজের জন্য একটি ব্যতিক্রমী আয়োজন হিসেবে তুলে ধরার জন্য। টুর্নামেন্টকে ঘিরে গুরুত্বপূর্ণ মানুষের সমাগম ঘটবে।

সিডব্লিউএ ১১৮২ এর চিফ ডেলিগেট সাইদ ইসলাম বলেন, ট্রাফিক কর্মকর্তাদের মধ্য থেকে টুর্নামেন্টে থাকছে ১১টি ক্রিকেট টিম, বাপার একটি টিম মিলে মোট ১২টি টিমের খেলা চলবে। ট্রাফিক কর্মকর্তাদের মধ্যে এ টুর্নামেন্ট নিয়ে উৎসাহ দেখে তিনি আপ্লুত। তিনি জানান, শুধু স্বদেশি লোকজনের মধ্যেই টি-২০ নিয়ে উৎসাহ নয়। বহু জাতি গোষ্ঠীর এ নগরের অন্যান্য কমিউনিটি থেকেও লোকজন এ টুর্নামেন্টের সঙ্গে সম্পৃক্ত হয়েছেন।

টি-২০ টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হবে আগামী ৭ জুন। এরপর ১৩ জুন হবে প্রথম খেলা। সপ্তাহান্ত এবং সোমবার মিলে জ্যামাইকার বেসলি পন্ড পার্কে এ খেলা চলবে ২৭ জুন পর্যন্ত। বৃষ্টি হলে বাতিল খেলা ২৮ জুন হবে।

সিডব্লিউএ ১১৮২ ও বাপা আয়োজিত টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে প্রবীণ সাংবাদিক মাহবুবুর রহমান বলেছেন, চলমান বাস্তবতায় জনমনে প্রশান্তি নিয়ে আসার জন্য টি-২০ টুর্নামেন্ট আয়োজন করে জনসমাজের অগ্রসর পেশাজীবী হিসেবে তাঁরা উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ নিয়েছেন।

টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্টে সম্প্রচার ও সংবাদ সহযোগিতা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের জনপ্রিয় আইপিটিভি টিবিএন-২৪ ও প্রথম আলো উত্তর আমেরিকা।

Leave a Reply