পাহাড়ে ভ্রমণ : সতর্ক থাকতে হবে যেসব বিষয়ে

পাহাড়ে ভ্রমণ : সতর্ক থাকতে হবে যেসব বিষয়ে

ইমিগ্রেশন নিউজ ডেস্ক

পাহাড় আর সমুদ্র-কার না ভালো লাগে।  ভ্রমণের জন্যে একেবারে জুতসই। আর অ্যাডভেঞ্চার প্রিয়রা বেছে নেন পাহাড়। তাঁরা ভ্রমণের নেশায় পাড়ি দেন দুর্গম পাহাড়। বাংলাদেশের পার্বত্য অঞ্চল সহ বিভিন্ন জায়গায় অসংখ্য পাহাড় আর সবুজ প্রকৃতি রয়েছে, যেখানে চাইলে ঘুরে আসতে পারেন।

পাহাড় শীতে এক আমেজ। বর্ষায় অন্য রকম। আবার শীতে কুয়াশা ঢাকা নির্মল প্রকৃতি মন ভিজিয়ে দেবে। অনেকে বর্ষার প্রকৃতির রূপ দেখতে চান। তখন সবুজের সমারোহে ভরে উঠে সর্বত্র। পূর্ণ যৌবনা ঝরনা বয়ে চলে কলকল শব্দে।

তবে পাহাড়ে ভ্রমণ করার আগে প্রস্তুতি দরকার। শীতে বা বর্ষায়, যে মৌসুমেই যান কেন সেই প্রস্তুতি নিয়েই যেতে হবে

# পাহাড়ে ভ্রমণ করবেন এমন সিদ্ধান্তটি সবার আগে নিয়ে নিন। তারপর গুছিয়ে নিন ব্যাগ-ব্যাগেজ। ভ্রমণের গুরুত্বপূর্ণ উপকরণ যেমন ক্যামেরা, মুঠোফোন, ফোনের চার্জার, ইত্যাদি তো থাকবেই। যদি বর্ষায় ভ্রমণে যান তবে  রেইনকোট রাখতে ভুল করা যাবে না। সঙ্গে ছাতা, ক্যাপ, সানগ্লাসও রাখবেন।

# বর্ষায় পাহাড়ে জোঁক থাকে। জোঁকের জ্বালা থেকে বাঁচতে সঙ্গে গুল রাখুন। আগে থেকে সতর্কতা অবলম্বন করলে হোটেল থেকে বের হলে পাহাড়ে হাঁটার সময় পায়ে কেরোসিন লাগিয়ে নিতে হবে।

# পাহাড়ে যেহেতু যাবেন প্রাকৃতিক নানা সমস্যার সঙ্গে মশার উপদ্রবের কথা মাথায় রাখতে হবে। কথায় আছে-‘মশার ওষুধ মশারি’। মজা করে বলা হলেও কথাটি সত্য। বিশেষ কীটনাশকযুক্ত মশারি বাজারে পাওয়া যায়। কিন্তু সেটি তো রাতে ঘুমানোর সময় কাজে আসবে। ভ্রমণের সময়? সেখানেও তো মশা অতিষ্ঠ করে তুলতে পারে। মশারি নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে অডোমস ক্রিম রাখুন। এ ছাড়া হোটেল বা
রিসোর্টের ঘরে, বাথরুমে ও বারান্দায় মশার ওষুধ স্প্রে করে নেবেন।

# বাইরে বের হয়ে চলাফেরার সময় ফুলহাতা জামা ও প্যান্ট পরে নেবেন। শীতে হলে এমনিতেই জ্যাকেট পরতে হবে। সঙ্গে আরও নানা কাপড় পেঁচিয়ে নেওয়া ভালো। গলায় মাফলার। মুখে মাস্ক রাখাটা একধরনের নিরাপত্তা হতে পারে। মনে রাখবেন পাহাড়ে শীতের সময় শীত ও গরমের সময় গরম বেশি।

# পাহাড়ে কেমন পানি পাওয়া যায় তার ঠিক নেই। তাই পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট রাখতে হবে। হাঁটতে গিয়ে অনেক সময় উরুতে, পায়ে আঘাত লাগতে পারে বা ঘা হতে পারে। তাই সঙ্গে বেটনোবেট অয়েন্টমেন্ট  রাখুন। অবশ্যই গামছা রাখতে হবে। বৃষ্টিতে ভিজলে সঙ্গে সঙ্গে শরীর, মাথা মুছে ফেলুন। তবে মাথায় পলিথিন পেঁচিয়ে নিতে পারেন। শীতে হলে মাথায় ক্যাপ পরতে পারেন।

#প্রয়োজনীয় কিছূ ওষুধপত্র যেমন-প্যারাসিটামল, নাপা, খাবার স্যালাইন ইত্যাদি জরুরি কিছু রাখতে হবে সাথে।

*পাহাড় উঠতে লাঠি ও ট্রেকিং উপযোগী জুতা দরকার। কারণ পাহাড়ি রাস্তা পিচ্ছিল থাকে সাধারণত। বৃষ্টির মধ্যে পাহাড়ে না ওঠাই ভালো। তবে মাঝপথে বৃষ্টি এলে অতিরিক্ত সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। কোনো শিশু বা গর্ভবতী মহিলাকে নিয়ে পাহাড়ে উঠা যাবে না। এতে ঝুঁকি বেড়ে যায়।

# পাহাড় ভ্রমণ করে ফেরার পর যদি জ্বর হয় তবে অবশ্যই দ্রুত বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

যতোটা সম্ভব ভ্রমণ করুন। শীতে কিংবা বর্ষায়। পাহাড়ে ট্রেকিং করুন। তবে
সবকিছুই সতর্কভাবে করতে হবে। কথায় বলে, ‘সাবধানের মার নেই’।

Leave a Reply