ফুলব্রাইট স্কলারশিপে আমেরিকা

ফুলব্রাইট স্কলারশিপে আমেরিকা

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র মানে যে কারো জন্য স্বপ্নের দেশ। বিশেষ করে বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের জন্য পছন্দের তালিকায় শীর্ষে এই দেশ। এর যথেষ্ট কারণও আছে। মূলত বিশ্বের সবচেয়ে বেশি শিক্ষাবৃত্তির সুযোগ রয়েছে এই দেশটিতে। এই বৃত্তি একদিকে যেমন সম্মানের, অন্যদিকে সুযোগ-সুবিধাও অবারিত। শিক্ষার মান, উন্নতজীবনের হাতছানি, সবধরনের সুযোগ-সুবিধা, গবেষণার  সুযোগ সহ সব মিলিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের নামটি শিক্ষার্থীদের টার্গেটে থাকে।

প্রতিবছর ফুলব্রাইট স্কলারশিপ প্রদান করে থাকে মার্কিন সরকার। এর আওতায় বিশ্বের ১৬০টির বেশি দেশ থেকে প্রায় ৪ হাজার করে শিক্ষার্থী প্রতি বছর দেশটির স্বনামধন্য বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পড়ার সুযোগ পেয়ে থাকেন।

ফুলব্রাইট স্কলারশিপ প্রোগ্রামের আওতায় স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থী, তরুণ পেশাদার ও শিল্পীদের যুক্তরাষ্ট্রে পড়াশোনা এবং গবেষণা পরিচালনা করতে তহবিল প্রদান করা হয়। মূলত মাস্টার্স ও পিএইচডি ডিগ্রির জন্য এই বৃত্তি প্রদান করা হয়।

এই প্রোগ্রামটি দ্বিপাক্ষিক ফুলব্রাইট কমিশন / ফাউন্ডেশন বা মার্কিন দূতাবাস দ্বারা পরিচালিত হয়। বিদেশী শিক্ষার্থীদের আবেদনগুলো এই অফিস কর্তৃক প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করা হয়। আবেদনের যোগ্যতা এবং নির্বাচনের পদ্ধতি দেশভিত্তিক ভিন্ন হয়ে থাকে।

আবেদন করার জন্য যোগ্যতার মধ্যে থাকতে হবে

ভালো রেজাল্ট সহ ৪ বছরের স্নাতক ডিগ্রি সম্পন্ন করতে হবে, বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রিতে ভর্তি হয়ে থাকলে আবেদন অযোগ্য বলে বিবেচিত হবেন, অন্য দেশ থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি করা থাকলেও আবেদন করা যাবে না। তবে বাংলাদেশি স্নাতকোত্তর ডিগ্রি থাকলে আবেদন করা যাবে। যে বিষয়ে আবেদন করতে আগ্রহী সেই বিষয়ে ২ বছরের পূর্ণ কাজের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে, সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হতে হবে, ভাষাগত দক্ষতায় আইইএলটিএস স্কোর অন্তত ৭ অথবা টুফেল ন্যুনতম ৮০ স্কোর থাকতে হবে। আর ডিগ্রি সম্পন্ন না করে ফিরে আসলে ফিরতি বিমান টিকেটের মূল্য ফেরত দিতে সম্মত হতে হবে।

এই বৃত্তির উপকারিতা

বৃত্তির আওতায় সুযোগ-সুবিধাগুলোর মধ্যে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে আসা-যাওয়ার বিমানের টিকেট, সম্পূর্ণ টিউশন ফি এবং অন্যান্য একাডেমিক ফি, কক্ষ, আবাস ও আনুষঙ্গিক ব্যয নির্বাহে মাসিক খরচ, বই-পত্র ক্রয়ের ভাতা, স্বাস্থ্য ও দুর্ঘটনা বীমা, ভ্রমণ ভাতা ও অতিরিক্ত মালপত্রের ভাতা ইত্যাদি যাবতীয় সুযোগ এর অন্তর্ভুক্ত।

বাংলাদেশ থেকে আবেদন করার জন্য যোগাযোগ করবেন মার্কিন দূতাবাস ঢাকা, মাদানী অ্যাভিনিউ, বারিধারা, ১২১২, বাংলাদেশ। এ ছাড়াও মার্কিন দূতাবাসের সামনে আছে আমেরিকান লাইব্রেরি যেখানে একটি ফরম পূরণ করে সদস্য হওয়া যায় এবং আমেরিকায় উচ্চ শিক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় গাইডলাইন পাওয়া যায়। আরও বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন ওয়েবসাইট: https://bd.usembassy.gov/education-culture/student-exchange-programs/ ইমেইল: sultanar1@state.gov

Leave a Reply