মানবকল্যাণে সাংবাদিকতা : ইইউ লরেঞ্জো নাতালী পুরস্কার
লরেঞ্জো নাতালি মিডিয়া পুরস্কার

মানবকল্যাণে সাংবাদিকতা : ইইউ লরেঞ্জো নাতালী পুরস্কার

ফরিদ আহমেদ পাটোয়ারী, পর্তুগাল,

সাংবাদিকতা পেশাটি কত গুরুত্বপূর্ণ তা এক কথায় বলে বোঝানো সম্ভব নয় সাংবাদিকদেরকে বলা হয় একটি দেশের চতুর্থ স্তম্ভ। সাংবাদিকগণ মানব জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে , ব্যক্তিজীবন থেকে শুরু করে সমাজ রাষ্ট্র এমনকি বৈশ্বিক অর্থনীতি এবং সর্বাঙ্গীণ বিষয়ে সামঞ্জস্য বিধান করার জন্য সাংবাদিকগণ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকেন।

সাংবাদিকদের সম্মান এবং উৎসাহ প্রদান করার জন্য ইউরোপিয়ান কমিশনের ডিরেক্টরেট ফর ইন্টার্নেশনাল পার্টনারশিপ (ডিজি-আইএনটিপিএ) ১৯৯২ সালে লরেঞ্জো নাতালি মিডিয়া পুরস্কার ঘোষণা করেন যা প্রতিবছর কৃতিত্বপূর্ণ সংবাদ পরিবেশনের সাংবাদিকদের প্রদান করা হচ্ছে,  যারা তাদের সংবাদের মাধ্যমে তুলে নিয়ে আসছেন অসমতা, দারিদ্রতা, শিক্ষা, টেকসই উন্নয়ন, পরিবেশ, জীববৈচিত্র্য , আবহাওয়া সংক্রান্ত, ডিজিটাল, চাকুরী এবং কর্মসংস্থান, শিক্ষা এবং দক্ষতার উন্নয়ন,  অভিবাসন,  স্বাস্থ্য, শান্তি, গণতন্ত্র এবং মানবাধিকার সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো।
তিনটি ক্যাটাগরিতে আবেদন করা যাবে প্রথমটি হলো (১)গ্র্যান্ড প্রাইজ: উন্নয়ন এবং সহযোগিতা নিয়ে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের অন্যতম অংশীদার দেশের মিডিয়া ভিত্তিক  প্রকাশিত প্রতিবেদন (২)ইউরোপ প্রাইজ: ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন ভিত্তিক মিডিয়া দ্বারা প্রকাশিত প্রতিবেদন (যুক্তরাজ্য বাদে) (৩) সেরা উদীয়মান সাংবাদিক পুরস্কার: 30 বছরের কম বয়সী সাংবাদিকদের জন্য যাদের রিপোর্ট ইউনিয়ন ভিত্তিক মিডিয়া দ্বারা প্রকাশিত হয়েছিল বা উন্নয়ন এবং সহযোগিতার বিষয়ে এর অংশীদার দেশগুলোর একটিতে।
পয়লা মার্চ থেকে আবেদন শুরু হয়েছে যা চলবে আগামী উনিশে এপ্রিল পর্যন্ত ইউরোপীয় ইউনিয়নের ২৭ টি দেশের সাংবাদিকগণ এখানে অনলাইন ফরম লিংক https://form.jotform.com/210472443345349 পূরণ করে আবেদন করতে পারবেন। প্রতিটি ক্যাটাগরিতে বিজয়ী ১০ হাজার ইউরো পুরস্কার পাবেন এবং উদীয়মান সেরা সাংবাদিক ক্যাটাগরির বিজয়ী কে  মিডিয়া পার্টনার হিসেবে কাজ করার সুযোগ দেওয়া হবে।

লরেঞ্জো নাতালি মিডিয়া পুরস্কার

যার নামে এই পুরস্কার কে এই লোরেঞ্জো নাতালি , জন্ম ১৯২২ সালের ২ অক্টোবর ইতালির ফ্লোরেন্স শহরে। ইতালির একজন দক্ষ রাজনীতিবিদ ছিলেন তিনি।  ১৯৭৭ থেকে ১৯৮৯ সাল পর্যন্ত তিনি ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের একজন প্রাক্তন কমিশনার এবং মত প্রকাশের স্বাধীনতা গণতন্ত্র মানবাধিকার ও উন্নয়নের কট্টর একজন রক্ষক। ইউরোপীয় ইউনিয়নের দায়িত্বে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সম্পর্কের সেতুবন্ধন হিসেবে কাজ করেছেন। তার কর্মকাণ্ডের প্রতি সম্মান জানিয়ে প্রতিবছর লরেঞ্জো নাতালি মিডিয়া পুরস্কার প্রদান করা হয়। তিনি মৃত্যুবরণ করেন ১৯৮৯ সালের ২৯ শে আগস্ট ইতালির রোম শহরে।
গত বছরের সংস্করণটিতে বিজয়ীরা হলেন (১) দ্যু জাং-গ্র্যান্ড প্রাইজ বিভাগের অধীনে- হংকংয়ের প্রতিবাদের ২০১৯ এর একটি রিপোর্টের জন্য, (২) সিসিল শিলিস গাল্লেগো এবং মেরিওন গুয়েগান-ইউরোপ  প্রাইজ-  খনির রিপোর্টের প্রতিবেদনে সাংবাদিকরা যে প্রতিকূল পরিবেশের মুখোমুখি হয়েছিল তা দেখানোর জন্য, (৩) সেরা উদীয়মান সাংবাদিক হিসাবে সাংবাদিক হিসেবে শোলা লয়াল  আফ্রিকা অভিবাসীদের উত্তর আমেরিকা পৌঁছানোর জন্য যে বিপজ্জনক পরিস্থিতি মোকাবেলা করেছে সে সম্পর্কে রিপোর্ট করার জন্য ।

Leave a Reply