‘শোকেস বাংলাদেশ-মালয়েশিয়া ইনভেস্টমেন্ট সামিট’
কুয়ালালামপুরের বাংলাদেশ হাইকমিশনের সহযোগিতায় ভার্চুয়াল মাধ্যমে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

‘শোকেস বাংলাদেশ-মালয়েশিয়া ইনভেস্টমেন্ট সামিট’

আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া :

‘শোকেস বাংলাদেশ-মালয়েশিয়া ইনভেস্টমেন্ট সামিট’ সামিট অনুষ্ঠিত হয়েছে। কুয়ালালামপুরের বাংলাদেশ হাইকমিশনের সহযোগিতায় ভার্চুয়াল মাধ্যমে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। 

বুধবার (২ জুন) স্থানীয় সময় দুপুর ২টায় সম্মেলন শুরু হয়ে দুই ঘণ্টা চলে। বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা) ও স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক যৌথভাবে এ ভার্চুয়াল সম্মেলনের আয়োজন করে।অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যুক্ত ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। বিশেষ অতিথি হিসেবে যুক্ত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান।

সম্মেলনে স্বাগত বক্তব্য দেন বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের সিইও নাসের এজাজ বিজয় এবং মালয়েশিয়া স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের সিইও আবরার এ আনওয়ার। বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) নির্বাহী চেয়ারম্যান মো. সিরাজুল ইসলাম বাংলাদেশের বিনিয়োগ সম্ভাবনার বিষয়ে একটি কি-নোট পেপার উপস্থাপন করেন।

বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা) ও স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক যৌথভাবে এ ভার্চুয়াল সম্মেলনের আয়োজন করে।

সম্মেলনে প্যানেল আলোচক হিসেবে যুক্ত ছিলেন, মালয়েশিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মো. গোলাম সারওয়ার, বাংলাদেশে নিযুক্ত মালয়েশিয়ার হাইকমিশনার হাজনাহ মো. হাশিম, রবির সিইও মাহতাব উদ্দীন আহমেদ, এড্রা এনার্জি বাংলাদেশ এর চিফ ইনভেস্টমেন্ট অফিসার দাতুক মো. নূর বিন আলী, ফরেন ইনভেস্টরস চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির প্রেসিডেন্ট রূপালী চৌধুরী এবং স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক মালয়েশিয়ার কমার্শিয়াল অ্যান্ড ইনস্টিটিউশনাল বিভাগের প্রধান ম্যাক জুন নিয়েন।

মালয়েশিয়া ও বাংলাদেশের উভয় দেশের ব্যবসায়িক নেতাসহ দুই শতাধিক অংশগ্রহণকারী এ সম্মেলনে যুক্ত ছিলেন। সম্মেলনে বক্তারা বাংলাদেশে বিদ্যমান অপার বিনিয়োগ সম্ভাবনার বিষয়ে আলোকপাত করেন এবং মালয়েশিয়ার বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশের কৃষি প্রক্রিয়াকরণ, হালাল খাদ্য, পোশাক শিল্প ও স্বাস্থ্য সেবা খাতে বিনিয়োগের আহ্বান জানান। সম্মেলনে বাংলাদেশকে দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে নিরাপদ ও লাভজনক বিনিয়োগ গন্তব্য হিসেবে অভিহিত করা হয়।

Leave a Reply