হজে যেতে প্রস্তুতি নেবেন কীভাবে
কীভাবে হজের প্রস্তুতি নিবেন-তা জেনে নেওয়া দরকার।

হজে যেতে প্রস্তুতি নেবেন কীভাবে

ইমিগ্রেশন নিউজ ডেস্ক:

মুসলমানদের পবিত্র স্তম্ভের মধ্যে পঞ্চম হজ। হজ বলতে বোঝায় নির্দিষ্ট মাসের নির্দিষ্ট সময়ে পবিত্র কাবা ঘর প্রদক্ষিণ, আরাফাত ময়দানে অবস্থান, সাফা ও মারওয়ার মধ্যবর্তী স্থানে গমনাগমন, মিনায় অবস্থান প্রভৃতি কাজ আল্লাহর নবী দ্বারা নির্ধারিত প্রক্রিয়ায় সম্পাদন করা। সারা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মতোই বাংলাদেশ থেকেই প্রতি বছর প্রচুর মুসল্লি হজব্রত পালনে সৌদি আরবে গমন করেন। মূলত আরবি জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ১ সেপ্টেম্বর হজ অনুষ্ঠিত হতে পারে।

ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয় বলছে, বাংলাদেশ থেকে এ বছর ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন (এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ১০ হাজার জন, অন্যরা বেসরকারি ব্যবস্থাপনায়) হজে যেতে পারবেন। তবে কীভাবে হজের প্রস্তুতি নিবেন-তা জেনে নেওয়া দরকার। চলুন তাহলে এই বিষয়ে কিছু তথ্য জানা যাক-

‘নিয়ত বা সিদ্ধান্ত গ্রহণ’

যেকোনো কিছু করার শুরুতেই সিদ্ধান্ত গ্রহণ জরুরি। পরিকল্পনা অনুযায়ী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা গেলে যেকোনো ধরনের উদ্যোগ সফল হয়। হজের জন্যও সবার আগে নিয়ত করতে হবে। নিয়ত বা মনস্থির করাটাই হজব্রত পালন করতে যাওয়ার ক্ষেত্রে প্রস্তুতির সূচনা বলা যায়।

তারপর কী করণীয়?

এক্ষেত্রে প্রাক নিবন্ধন গুরুত্বপূর্ণ। বাংলাদেশে সৌদি ‘ই হজ সিস্টেমের’ যাত্রীদের জন্য প্রাক্-নিবন্ধন পদ্ধতি চালু রয়েছে। নিজে অথবা ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অনুমোদিত বৈধ হজ এজেন্সির মাধ্যমে প্রাক-নিবন্ধনের প্রথম ধাপ সম্পন্ন করে পেমেন্ট ভাউচারসহ ব্যাংকে টাকা জমা দিতে হবে। যাত্রীর প্রাক্-নিবন্ধন সনদ সংগ্রহ করতে হবে । প্রতি বছর সৌদি সরকারের সাথে চুক্তি মোতাবেক নির্ধারিত কোটা অনুযায়ী জাতীয় হজ ও ওমরাহ নীতির ধারার ভিত্তিতে হজযাত্রীদের নিবন্ধন সম্পন্ন করা হয়। এর বাহিরে করা যায় না।

এক্ষেত্রে যা লাগবে’

*সরকার কতৃক প্রদত্ত জাতীয় পরিচয়পত্র,

*যাদের বয়স ১৮ বছরের নিচে, তাদের ক্ষেত্রে অভিভাবকের সঙ্গে জন্ম নিবন্ধন সনদ দিয়ে প্রাক নিবন্ধন করতে পারবেন

*মোবাইল নম্বর লাগবে যেখানে এসএমএস পাওয়া হবে,

*টাকার ক্ষেত্রে সরকারি ব্যবস্থাপনার জন্য ৩০,০০০(ত্রিশ হাজার টাকা) আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনার জন্য ৩০,৭৫২ (ত্রিশ হাজার সাতশত বায়ান্ন) টাকা জমা দিতে হবে।

প্রাক-নিবন্ধন কোথায় করবেন?

*আপনার এলাকার ইউনিয়ন তথ্য সেবা কেন্দ্রে,

*জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে,

*বাংলাদেশ ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কার্যালয়ে,

*ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অনুমোদিত বৈধ হজ এজেন্সির মাধ্যমে,

*এছাড়া পরিচালক, হজ অফিস, আশকোনা, ঢাকায়। এর বাইরেও যেকোনো এক জায়গা থেকে হজযাত্রী নিজে অথবা তার পরিচিত কেউ প্রাক্-নিবন্ধন করতে পারবেন।

প্রাক-নিবন্ধন থেকে হজে যাওয়ার জন্য নির্বাচিত হলে মোবাইলে এসএমএস যাবে। এরপর নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হবে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে হজ অফিস অথবা সংশ্লিষ্ট এজেন্সি প্রাক-নিবন্ধন তথ্যভান্ডার থেকে হজ যাত্রীদের আবেদন অনলাইনে গ্রহণ করা হয়। এরপর প্যাকেজের সম্পূর্ণ টাকা পরিশোধ করে সংশ্লিষ্ট হজ এজেন্সি নিশ্চিত করলে পিলগ্রিম আইডি তৈরি করা হয়।

হজে যাওয়ার আগে কী করণীয়?

*শুরুতেই পাসপোর্ট সংগ্রহ করে নিতে হবে। তারপর বিমানের টিকিট সংগ্রহ করা এবং হজে গমনের জন্য তারিখ নিশ্চিত করা,

*প্রয়োজনীয় বৈদেশিক মুদ্রা সংগ্রহ করা,

*করোনা পরিস্থিতির কারণে জরুরি হলো করোনা সার্টিফিকেট এবং করোনা ভ্যাকসিন গ্রহণের সার্টিফিকেট সংগ্রহ করা।

*হজের নিয়মকানুন সম্পর্কে জানতে কিছু বই পড়ে নেওয়া জরুরি।

এভাবে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করে বিমানে উঠার আগে হাজি ক্যাম্পে অবস্থান করতে হবে। এসময় নিজের জিনিসপত্র নিজ দায়িত্বে রাখতে হবে। সর্বোচ্চ ৩০ কেজি ওজনের মালামাল সঙ্গে বহন করা যাবে। বিমানে ওঠার সময় কাঁচি, দড়ি নেয়া যাবে না।

জরুরি কাগজপত্র:

*১০ কপি পাসপোর্ট আকারের ছবি থাকতে হবে আর স্ট্যাম্প আকারের ৬ কপি ছবি,

*পাসপোর্টের ১-৫ পাতার সত্যয়িত ফটোকপি সাথে রাখা

*এছাড়া স্বাস্থ্য পরীক্ষার সনদ, টিকা কার্ড,

আর নারী হজযাত্রীর ক্ষেত্রে শরিয়তসম্মত মাহরামের সঙ্গে সম্পর্কের সনদ থাকতে হবে। এছাড়াও ব্যাংকে টাকা জমা দেয়ার রসিদ।

*প্রত্যেক হজযাত্রীকে ৭ সংখ্যার একটি পরিচিতি নম্বর দেয়া থাকে। ৭ সংখ্যার নাম্বারের প্রথম ৪ সংখ্যা এজেন্সির নম্বর আর শেষ ৩ সংখ্যা হজযাত্রীর পরিচিতি নম্বর। এই নম্বরটি জানা থাকা জরুরি। এতে করে হজযাত্রী ও তাঁর আত্মীয়স্বজন ওয়েবসাইটে ওই হাজির তথ্য পেতে পারেন সহজে।

‘ইহরাম বাধা’

হাজিদের ঢাকা থেকে মক্কায় যেতে হবে, নাকি মদিনায় তা জেনে নিতে হবে আগেই। যাত্রা যদি মদিনায় হয়, তাহলে আগেই ইহরাম বাঁধতে হবে না।। যখন মদিনা থেকে মক্কায় যাবেন সেই সময়ে ইহরাম বাঁধতে হবে। তবে বেশিরভাগ হজযাত্রী আগে মক্কায় গিয়ে থাকেন। যদি মক্কা যেতে হয়, তাহলে ঢাকা থেকে বিমানে ওঠার আগে ইহরাম বাঁধা সুবিধাজনক হবে।

Leave a Reply