১৭ই এপ্রিল প্রিন্স ফিলিপের শেষকৃত্য
প্রিন্স ফিলিপের শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে ১৭ই এপ্রিল

১৭ই এপ্রিল প্রিন্স ফিলিপের শেষকৃত্য

ইমিগ্রেশন নিউজ ডেস্ক : 

বাকিংহাম প্রাসাদ থেকে ঘোষণা করা হয়েছে প্রিন্স ফিলিপের শেষ কৃত্য অনুষ্ঠিত হবে উইন্ডসরে আগামী শনিবার ১৭ই এপ্রিল। ডিউকের শেষ কৃত্য রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে হবে না। সেটি হবে “রাজপরিবারের আনুষ্ঠানিক রীতি অনুযায়ী রাজকীয় অন্ত্যেষ্টি”, এই তথ্য জানিয়ে বাকিংহাম প্রাসাদের মুখপাত্র বলেছেন “ডিউকের শেষ কৃত্য হবে তার শেষ ইচ্ছা মেনে”।

প্রাসাদ থেকে জানানো হয়েছে আগামী শনিবার ১৭ই এপ্রিল ব্রিটিশ স্থানীয় সময় বিকাল তিনটায় তার শেষ কৃত্য হবে। এই অনুষ্ঠানে তাঁর বর্ণময় দীর্ঘ জীবনের নানা দিক প্রতিফলিত হবে। মহামারির নিয়মবিধি মেনে প্রিন্স ফিলিপের শেষকৃত্যানুষ্ঠান সীমিত আকারে করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

রানি এই অনুষ্ঠানের পরিকল্পনা অনুমোদন করেছেন। উইন্ডসর কাসেলের নিজস্ব চ্যাপেল সেন্ট জর্জেস চ্যাপেলে ডিউক অফ এডিনবারার মরদেহ শায়িত রাখা হয়েছে। প্রাসাদ থেকে জানানো হয়েছে, তাঁর কফিন ঢাকা আছে তার ব্যক্তিগত পরিচিতি বহনকারী কাপড়ে এবং তার ওপর সাজানো রয়েছে পুষ্পস্তবক।

তাঁর মরদেহ জনসাধারণের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় শায়িত রাখা হবে না। শনিবার তার কফিন উইন্ডসর কাসেলের প্রবেশদ্বার থেকে গাড়িতে তোলা হবে। ডিউক নিজেই এই যাত্রার পরিকল্পনার সাথে যুক্ত ছিলেন।প্রাসাদ থেকে বলা হয়েছে, প্রিন্স অফ ওয়েলস, প্রিন্স চালর্স সহ রাজপরিবারের সদস্যরা ডিউক অফ এডিনবারার কফিনের পেছনে পায়ে হেঁটে চ্যাপেলে যাবেন, তবে রানি যাবেন আলাদাভাবে।

ডিউক অব এডিনবার্গ প্রিন্স ফিলিপের শেষকৃত্যে থাকবেন না ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে আরোপিত বিধিনিষেধের কারণে এতে শুধু পরিবারের সদস্যরাই থাকবেন। আগামী শনিবার (১৭ এপ্রিল) প্রিন্স ফিলিপের শেষযাত্রায় তার সন্তান, নাতি-নাতনি ও পরিবারের ঘনিষ্ঠরাসহ মাত্র ৩০ জন উপস্থিত থাকতে পারবেন। উইন্ডসরের সেন্ট জর্জ চ্যাপেলে শেষকৃত্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। জনসাধারণকে এ অনুষ্ঠান এড়িয়ে যাওয়ার অনুরোধ করা হয়েছে।

গত শুক্রবার উইন্ডসর ক্যাসেলে ব্রিটিশ রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের স্বামী প্রিন্স ফিলিপ মৃত্যুবরণ করেন। তার বয়স হয়েছিল ৯৯ বছর। ব্রিটিশ ইতিহাসের সবচেয়ে বেশি দিন ধরে রয়্যাল কনসোর্ট ছিলেন তিনি।

Leave a Reply